শনিবার, ১ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দোয়ারাবাজারে স্বামী ও পরিবারের লোকজনের নির্যাতনে এক গৃহবধুর মৃত্যু,,স্বামী আটক।



দোয়ারাবাজারে স্বামী ও পরিবারের নির্যাতনে আহত ৩ সন্তানের জননী সাজনা বেগমের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার (২৮ আগষ্ট) সিলেটের উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই নারীর মৃত্যু ঘটেছে। বুধবার(২৪আগষ্ট)দোয়ারাবাজার উপজেলার নরশিংপুর ইউনিয়নের পুলকারগাঁও গ্রামে সাজনা বেগমের স্বামীর বাড়িতে এ নির্যাতনের ঘটনাটি ঘটেছে।মৃত্যুর খবর পেয়ে দোয়ারাবাজার থানা পুলিশ সাজনা বেগমের স্বামী সুলতান মিয়াকে আটক করেছে।জানাগেছে প্রায় ৮ বছর আগে ছাতক উপজেলার গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউনিয়নের বাউভোগলী গ্রামের মরহুম আছদ্দর আলীর মেয়ে সাজনা বেগমের বিয়ে হয় দোয়ারাবাজার উপজেলার নরশিংপুর ইউনিয়নের পুলকারগাঁও গ্রামের মৃত আব্দুল আলী গফুরের পুত্র সুলতান মিয়ার সাথে। বিয়ের পর থেকেই স্বামী ও তার পরিবারের নির্যাতনের শিকার হয়ে আসছে সাজনা বেগম।
গত২৪ আগষ্ট স্বামী ও পরিবারের লোকজন যৌতুকের দাবিতে সাজনা বেগমের উপর নির্যাতন চালায়।নির্যাতনে গুরুতর আহত হয় ওই গৃহবধু। নির্যাতনের পরদিন আহত সাজনা বেগমকে চিকিৎসার জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।পরে তাকে নগরীর উইমেন্স হাসপাতালে ভর্তি করে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। রবিবার বিকাল ৪ টার দিকে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় ওই নারীর মৃত্যু হয়।সাজনা বেগমের ভাই আছলম আলী জানায়, স্বামীসহ স্বামীর পরিবারের লোকজনের অমানুষিক নির্যাতনে তার বোনের মৃত্যু হয়েছে।এ ঘটনায় তিনি থানায় মামলা দায়ের করবেন।দোয়ারাবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেবদুলাল ধর বলেন, এমন ঘটনা শুনে থানা থেকে উপ-পরিদর্শক মিজানুর রহমানকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।