শুক্রবার, ১ জুলাই ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা নিয়ে সিলেট যাবে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল



নারী ফুটবলে বাংলাদেশের উন্নতি লক্ষনীয়। সাফ অ-১৮ নারী ফুটবল দল ডিসেম্বরে বাংলাদেশে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। স্বাধীনতার ৫০তম বছরে বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনে সেটি ছিল সর্বোচ্চ অর্জন। সেই অর্জনের স্বীকৃতি পাচ্ছেন মারিয়ারা। আগাম ১৯ জুন অ-১৮ ফুটবল দলকে সংবর্ধনা দিবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর ঐদিনই সন্ধ্যার ফ্লাইটে সিলেটের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবে নারী ফুটবল দল।
বাংলাদেশের মাটিতে প্রথমবারের মতো ফিফা আন্তর্জাতিক নারী ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। মালয়েশিয়ার বিপক্ষে ২৩ ও ২৬ জুন দুটি প্রীতি ম্যাচ উপলক্ষে ১৭ জুন সিলেটে যাওয়ার কথা ছিল সাবিনা খাতুনদের। তবে তা পিছিয়ে ১৯ জুন করা হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনার কারণে। আজ বাফুফে ভবনে মহিলা ফুটবল কমিটির চেয়ারপারসন মাহফুজা আক্তার কিরণ জানিয়েছেন এই কথা।

২৩ ও ২৬ জুন সিলেটে নারী ফুটবল দলের দুই ম্যাচ হবে ঘাসের মাঠে। নারী ফুটবল দল সারা বছর অনুশীলন করে টার্ফে। ম্যাচের এক সপ্তাহ আগে যাওয়ার কারণ ছিল ঘাসের মাঠে অনুশীলন করা। সংবর্ধনার জন্য সিলেট যাওয়া পিছিয়ে গেলেও ঢাকাতেই ঘাসের মাঠে অনুশীলনের ব্যবস্থা করেছে বাফুফে। কিরণ বলেন, ‘শেখ জামাল ধানমন্ডি মাঠে ফুটবলাররা এই কয়েকদিন অনুশীলন করবে। ’

২৩ ও ২৬ জুনের ম্যাচের সময়সূচি এখনো চুড়ান্ত করেনি৷ বাফুফের পরিকল্পনা ফ্লাডলাইটে আয়োজন করার। কিন্তু সিলেট স্টেডিয়ামে বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকায় জটিলতা রয়েছে। এই বিষয়ে কিরণ বলেন, ‘জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সঙ্গে আমাদের আলোচনা হচ্ছে। এখনো আনুষ্ঠানিক অনুমতি পাওয়া যায়নি ফ্লাডলাইটের। আগামীকালের মধ্যে ফ্লাডলাইটের বিষয়টি চূড়ান্ত হবে। ’ ফ্লাডলাইটের অনুমতি না মিললে বিকেল চারটায় হতে পারে ম্যাচ।

মালয়েশিয়া নারী ফুটবল দল ২০ জুন ঢাকায় পৌঁছানোর কথা। সেদিন পৌঁছেই সিলেট যাবে সরাসরি সফরকারী দলটি। দেশের মাটিতে প্রথম নারী আর্ন্তজাতিক প্রীতি ম্যাচ উপলক্ষে বাফুফে নানা প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। আজ (১৩ জুন) সোমবার বাফুফে ভবনে আসন্ন ম্যাচ উপলক্ষে নারী ফুটবল কমিটির এক সভাও অনুষ্ঠিত হয়েছে।