শুক্রবার, ১ জুলাই ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সিলেটে ব্যবসায়ী হত্যায় ৪ আসামি গ্রেফতার, একজনের স্বীকারোক্তি



 

সিলেটের মালনীছড়া চা-বাগানে ব্যবসায়ী মনিরুল ইসলাম (৪২) হত্যার ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতারদের একজন শনিবার (১১ জুন) বিকেলে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। গ্রেফতাররা হলেন- সিলেটের গোলাপগঞ্জ থানার গাগুয়া গ্রামের মৃত শফিক মিয়ার ছেলে সোহেল আহমদ ওরফে বাটার সোহেল (৪৫), সিলেট মহানগর পুলিশের এয়ারপোর্ট থানার সাহেবেরবাজার এলাকার বদনছড়া গ্রামের মো. রফিক মিয়ার ছেলে মো. লিমন মিয়া (২০), এয়ারপোর্ট থানার বন্ধন-এফ-১০ এর মৃত হেলাল আহমদের ছেলে সাহেল আহমদ নয়ন (৩৫) ও তার ভাই রিপন আহমদ সেলিম (৩৩)।

৪ জুন দিনগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে সিলেট-এয়ারপোর্ট সড়কের মালনীছড়া চা-বাগানের বাংলোর পার্শ্ববর্তী পাকা সড়কের পাশে চা-বাগানের ভেতর থেকে ব্যবসায়ী মনিরুল ইসলামের (৪২) রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মোটরসাইকেলে বাসায় ফেরার পথে মনিরুলকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা।

এ ঘটনায় ৬ জুন রাতে মনিরুল ইসলামের স্ত্রী হেনা বেগম বাদী হয়ে এয়ারপোর্ট থানায় হত্যা মামলা করেন। হত্যাকাণ্ডের পাঁচ দিনের মাথায় এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে চারজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর মধ্যে লিমন নামের এক যুবক হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন।

সিলেট মহানগর পুলিশের (এসএমপি) অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) বিএম আশরাফ উল্যাহ তাহের জাগো নিউজকে বলেন, গ্রেফতার চারজনের মধ্যে একজন লিমন স্বীকারোক্তি দেওয়ায় তাকে আদালত জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন। এ ছাড়া বাকি তিনজনকে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেছে পুলিশ।

তিনি আরও বলেন, তদন্তের স্বার্থে অনেক কিছুই বলা যাচ্ছে না। পূর্ব বিরোধের জের ধরেই এ হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে।

সূত্র: জাগোনিউজ।