মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শীতকালীন সবজির পুষ্টি



 

বাজারে শীতকালীন সবজি ফুলকপি, বাঁধাকপি, শিম, মটরশুঁটি, ব্রকলি, শালগম, মুলা, পালংশাক, পেঁয়াজকলি ও লাউ চলে এসেছে। এসব সবজি যেমন সুস্বাদু, তেমনি এর পুষ্টিও বেশি। তাই শীতে পুষ্টিমান বাড়াতে প্রচুর শাকসবজি গ্রহণ করুন। ফুলকপি: ভিটামিন এ, বি, সি (যদিও তাপে নষ্ট হয়ে যায়) ও ভিটামিন কে আছে প্রচুর। এ ছাড়া আছে আয়রন, সালফার, ফসফরাস, ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ ও ফাইবার। ফুলকপির সালফারযুক্ত সালফোরাফেন উপাদান ক্যানসার কোষ ধ্বংস করে, রক্তচাপ কমায় এবং হƒদ্?যন্ত্র সুস্থ রাখে। ফাইবার ও সালফারসমৃদ্ধ ফুলকপি পরিপাকে সহায়তা করে ও কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। ফুলকপির ভিটামিন এ ও সি শীতকালীন ঠাণ্ডা, জ্বর, সর্দি, কাশি ও টনসিলের প্রদাহ থেকে বাঁচিয়ে রাখে। শিম: এটি আমিষের খুব ভালো উৎস। যারা নিরামিষভোজী এবং মাছ-মাংস যেকোনো কারণে খেতে পারছেন না, তারা কিন্তু খুব সহজেই শিম, বরবটি, মটরশুঁটি ও শিমের বিচি থেকে আমিষের চাহিদা পূরণ করতে পারেন। এতে আছে প্রচুর ভিটামিন, খনিজ পদার্থ, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও পানি, যা রক্তের কোলেস্টেরল কমায়, কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে, রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়ায় এবং শিশুদের অপুষ্টি দূর করে। তবে যারা কিডনির রোগে ভুগছেন, তারা বেশি শিম খাবেন না। মুলা: মুলার পাতায় ভিটামিন এ’র পরিমাণ বেশি। প্রচুর বিটা ক্যারোটিন, আয়রন ও ভিটামিন সি আছে। মুলা বিভিন্ন ক্যানসার প্রতিরোধ করে, ওজন হ্রাস করে এবং কিডনি ও পিত্তথলিতে পাথর তৈরি প্রতিরোধ করে। এটি খেলে কারও কারও ক্ষেত্রে অ্যাসিডিটি হতে পারে। পালংশাক: প্রচুর পরিমাণে ফলিক অ্যাসিড, ক্যালসিয়াম ও আয়রন আছে। উচ্চমানের পুষ্টিগুণসম্পন্ন ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে ভরপুর। আর্থ্রাইটিস ও অস্টিওপোরোসিস প্রতিরোধ করে। হƒদ্রোগ ও কোলন ক্যানসার প্রতিরোধ করে। এর ক্যারোটিনয়েডস ও শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট প্রস্টেট ক্যানসার ও ওভারিয়ান ক্যানসার প্রতিরোধ করে। যাদের ইউরিক অ্যাসিড বেশি, তারা সপ্তাহে এক দিন ৩০ গ্রাম করে খেতে পারবেন। টমেটো: টমেটোতে লুটিন ও লাইকোপিন নামে কেরাটিনয়েড আছে, যা দৃষ্টি ও চোখের স্বাস্থ্যকে ভালো রাখে। প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট আছে বলে ক্যানসার প্রতিহত করে। টমেটো রক্তচাপ ও ডায়াবেটিসও কমাতে সাহায্য করে। ত্বককে সতেজ রাখে। ম্যালিক ও সাইট্রিক অ্যাসিড বেশি থাকায় অনেক টমেটো একসঙ্গে খেলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা হতে পারে। টমেটো ভালো করে ধুয়ে খেতে হবে।

হাসিনা আকতার

ডেপুটি ডিরেক্টর ও বিভাগীয় প্রধান (খাদ্য ও পুষ্টি)

চট্টগ্রাম ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতাল