বুধবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানলের বলি কয়েক হাজার দুর্লভ বৃক্ষ



চলতি বছরের দাবানলে ক্যালিফোর্নিয়ায় হাজার হাজার দৈত্যাকার সিকোইয়া গাছ মারা গেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

দু’টি বজ্রপাত থেকে ছড়িয়ে পড়া দাবানলে দুর্লভ প্রজাতির ৩ হাজার ৬শ’ সিকোইয়া গাছ মারা গেছে অথবা আগামী ৫ বছরের মধ্যে মারা যাবে। প্রতিটি গাছের ব্যাস ৪ ফুটের (১২০ সেন্টিমিটার) ও বেশী।

এই সংখ্যা গোটা বিশ্বের বৃহত্তম এ প্রজাতির সংরক্ষিত মোট বৃক্ষ সংখ্যার ৫ শতাংশ। এক বছর আগে দাবানলে এই প্রজাতির ১৪ শতাংশ ধ্বংস হয়েছে।

সেকোইয়া এবং কিংস ক্যানিয়ন ন্যাশনাল পার্কের তত্ত্বাবধায়ক ক্লে জর্ডান বলেছেন, বাস্তবতা হলো আমরা সীমিত সংখ্যার এই আইকনিক গাছের বিশাল ক্ষতি দেখেছি। কয়েক জীবনেও এই ক্ষতি পূরণ করা যাবে না।

বছরের পর বছর খরা ও উষ্ণ আবহাওয়া ক্যালিফোর্নিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিমাঞ্চলে এ বছর তীব্র গরম এবং দ্রুত ছড়িয়ে পড়া দাবানলে দুর্লভ প্রজাতির এই বৃক্ষ নির্মূল হলো।

বিজ্ঞানীরা বলেছেন, অনিয়ন্ত্রিতভাবে জীবাশ্ম জ্বালানি পোড়ানোসহ মানবসৃষ্ট কার্যকলাপ এই গ্রহের উষ্ণতা বৃদ্ধির জন্য দায়ী। দাবানল ও ছড়িয়ে পড়া অগ্নিশিখা থেকে বাঁচাতে বিশ্বের বৃহত্তম গাছ জেনারেল শেরম্যানকে রক্ষা করতে অগ্নিনিরোধক ফয়েল দিয়ে মুড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

গাছটির উচ্চতা ২৭৫ ফুট (৮৩ মিটার)। গাছটি তাপীয় পরিস্থিতিতে ভালো অভিযোজন এবং ঘন বাকলের মাধ্যমে তাপীয় অবস্থা থেকে নিজেকে রক্ষা করে।