মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

প্যারাগুয়েকে হারিয়ে শেষ আটে আর্জেন্টিনা



স্পোর্টস ডেস্ক::

ম্যাচের শুরু থেকেই ভয়ঙ্কর দেখাচ্ছিল ডি মারিয়াকে।মেসির পাস থেকে মারিয়া বলটা পান বক্সের একটু বাইরে। বল নিয়ে ডানদিক থেকে ভিতর দিকে ঢুকে আসেন তিনি। তারপর ডিফেন্স চেরা পাস আলেয়ান্দ্রো গোমেজকে। আর সুযোগ বুঝে চিপ করে গোলকিপারের ওপর দিয়ে ১০ মিনিটের মাথায় বল জালে জড়িয়ে দেন স্প্যানিশ ক্লাব সেভিয়ার হয়ে খেলা এই ফুটবলার। স্বস্তির হাসি হাসে মেসিরা।

মঙ্গলবার (২২ জুন) প্যারাগুয়েকে ১-০ গোলে হারিয়ে কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করল আর্জেন্টিনা। ব্রাজিল এবং চিলির পর তৃতীয় দল হিসেবে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠল লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। আর এই ম্যাচ জিতে তিন ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ৭ পয়েন্ট।

মেসির রেকর্ড ছোঁয়ার দিনে শুরু থেকেই সপ্রতিভ ছিল আলবিসেলেস্তেরা। যদিও প্যারাগুয়ে রক্ষণের ভুলে, তবু সার্জিও আগুয়েরোর সামনে সুযোগ এসেছিল দলকে এগিয়ে দেওয়ার। কিন্তু দুই ডিফেন্ডারের ভুলে ম্যাচের অষ্টম মিনিটে পাওয়া সুযোগটা নষ্ট করেন চলতি টুর্নামেন্টে প্রথমবারের মতো খেলতে নামা বার্সেলোনা স্ট্রাইকার।

 

এ দিন ৪-২-৩-১ ছকে মাঠে নেমেছিল লিয়োনেল স্কালোনির ছেলেরা। প্রথম একাদশে শুরু করেন সার্খিয়ো আগুয়েরো। আট মিনিটের মাথায় তার কাছে সুযোগ এসে গিয়েছিল স্কোরকার্ডে নামে তোলার।কিন্তু গোলের সামনে বল পেয়েও তেকাঠির মধ্যে তা রাখতে পারেননি তিনি। ৬১ মিনিটের মাথায় তাকে তুলে লাজিয়োর জোয়াকিন কোরিয়াকে নামিয়ে দেন স্কালোনি।

তবে ২-০ গোলে জিততেই পারতেন মেসিরা। ৪৫ মিনিটের মাথায় জালে বল জড়িয়ে দিয়েছিলেন প্যারাগুয়ের জুনিয়র আলন্সো। তবে প্রথম গোলের দুই কারিগরই সুযোগ তৈরি করে দিয়েছিলেন দলকে ফের এগিয়ে দেওয়ার। ডি মারিয়ার শট আটকে দেন প্যারাগুয়ের গোলরক্ষক অ্যান্থনি সিলভা। সেই বল পেয়ে যান আর্জেন্টিনার লিয়ান্দ্রো প্যারাদেস। পাস বাড়িয়ে দেন গোমেজকে। সেই বল ধরে গোল বক্সে ক্রস তোলেন তিনি। আলন্সোর পা লেগে সেই বল গোলে ঢুকে যায়। তবে অফসাইডের সিদ্ধান্ত জানান রেফারি। ভার-এর মাধ্যমে যাচাই করেও অফসাইডের সিদ্ধান্তই বহাল রাখা হয়। তবে এই সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্ক থাকতেই পারে।

আগামী ২৯ জুন নিজেদের শেষ ম্যাচে বলিভিয়ার বিপক্ষে খেলবেন মেসিরা। সেদিন গ্রুপ শ্রেষ্ঠত্ব নিশ্চিত করাই যে হবে আলবিসেলেস্তেদের লক্ষ্য, তা বলাই বাহুল্য।